দক্ষিণ কোরিয়ার একজন সামরিক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, “এডিডি’র নেতৃত্বে গ্রাফাইট বোমা তৈরির সমস্ত প্রযুক্তি নিশ্চিত করা হয়েছে।”

উত্তর কোরিয়ার বিদ্যুৎ ব্যবস্থা ধ্বংস করার জন্যে ‘ব্ল্যাক আউট বোমা’ তৈরির কাজ এগিয়ে নিচ্ছে দক্ষিণ কোরিয়া।

দুই দেশের মধ্যে যুদ্ধ শুরু হলে গ্রাফাইট ব্যবহৃত এই বোমা উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে ব্যবহার করবে দক্ষিণ কোরিয়া।

১৯৯০ সালের গালফ যুদ্ধে প্রথমবারের মত আমেরিকা ইরাকের বিরুদ্ধে এই বোমা ব্যবহার করে।

বৈদ্যুতিক উপাদানের উপর কার্বন ফিলামেন্টের সূক্ষ্ম ও বিস্তৃত মেঘ সঞ্চারের মাধ্যমে এই বোমা কাজ করে। ফিলামেন্টগুলি এতই সূক্ষ্ম যে সেগুলি মেঘের মত ছড়িয়ে পড়ে এবং বৈদ্যুতিক সরঞ্জামে শর্ট সার্কিট ঘটায়।

বোমার কার্যকারিতা বাড়ানোর জন্যে দক্ষিণ কোরিয়া দ্রুত কাজ করে যাচ্ছে। গ্রাফাইট বোমা তৈরিতে দেশটির আগ্রহের কারণ হলো এগুলি আশেপাশের অঞ্চলের মানুষের জন্যে প্রাণঘাতী নয়।

দক্ষিণ কোরিয়ার এজেন্সি ফর ডিফেন্স ডেভেলপমেন্ট (এডিডি) অস্ত্রটির উন্নয়নে কাজ করেছে। ইউনহ্যাপ নিউজ এজেন্সির রিপোর্ট অনুযায়ী, এটি তৈরি করা হচ্ছে ‘কিল চেইন প্রোগ্রাম’ নামে পরিচিত একটি অতর্কিত বিমান হামলা কৌশলের অংশ হিসেবে।

দক্ষিণ কোরিয়ার একজন সামরিক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, “এডিডি’র নেতৃত্বে গ্রাফাইট বোমা তৈরির সমস্ত প্রযুক্তি নিশ্চিত করা হয়েছে। প্রযুক্তিটি এখন এমন পর্যায়ে আছে যে যে কোনো সময় আমরা এটি তৈরি করতে পারব।”

পিয়ংইয়ং এর পারমাণবিক ও ক্ষেপণাস্ত্র উন্নয়ন কর্মসূচির ক্রমবর্ধমান হুমকির ফলে দক্ষিণ কোরিয়া ৩ বছরের মধ্যে জাতীয় প্রতিরক্ষার ‘তিনটি স্তম্ভ’ স্থাপনের দিকে এগিয়ে গেছে।

৩ স্তরের কৌশলটি মূলত ২০২০ সালের মাঝামাঝি সময়ে বাস্তবায়নের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল। কিন্তু উত্তর কোরিয়ার ক্রমবর্ধমান আক্রমণাত্মক এবং অনিশ্চিত আচরণ সিউলকে সেই সময়সীমা সংশোধন করতে বাধ্য করেছে।

কিল চেইন প্রোগ্রামটি ডিজাইন করা হয়েছে সংক্ষিপ্ততম সময়ের মধ্যে আক্রমণকারী সম্ভাব্য ক্ষেপণাস্ত্র শনাক্ত ও সেটিকে প্রতিরোধ করার জন্যে। এছাড়াও এটি অভ্যন্তরীণ ক্ষেপণাস্ত্রগুলির বিরুদ্ধে নিম্নস্তরের প্রতিরোধে কোরিয়া এয়ার এবং ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা সিস্টেমের সাথে কাজ করে।

US BLU-114/B গ্রাফাইট বোমার ছবি

ইরাক যুদ্ধে গ্রাফাইট বোমাগুলি ভালোই কাজ করেছিল। পুরো দেশের প্রায় ৮৫ শতাংশ বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ করে দিয়েছিল বোমা। ন্যাটো ১৯৯৯ সালের মে মাসে সার্বিয়ার বিরুদ্ধে একই ধরনের অস্ত্র ব্যবহার করেছিল, যা সেই দেশের বিদ্যুৎ সরবরাহের ৭০ শতাংশের ক্ষতি সাধন করে।

বিশ্লেষকরা মনে করেন, উত্তর কোরিয়ায় বিরুদ্ধে এই অস্ত্রগুলি বেশ ভালোই কাজ করবে।

কমেন্ট করুন

মন্তব্য