page contents
লাইফস্টাইল, সংস্কৃতি ও বিশ্ব

‘ওয়ান্ডার ওম্যান’ নিয়ে জেমস ক্যামেরনের নিন্দার জবাবে পরিচালক প্যাটি জেনকিন্স

প্রাসঙ্গিক: জেমস ক্যামেরনের সাক্ষাৎকার (২০১৭)

সম্প্রতি দ্য গার্ডিয়ান পত্রিকাকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে পরিচালক জেমস ক্যামেরন ২০১৭ সালের ডিসি সুপারহিরো মুভি ওয়ান্ডার ওম্যানের সমালোচনা করে বলেন, “ওয়ান্ডার ওম্যান একটা অবজেক্টিফাইড আইকন। ফলে তাকে পুরুষশাসিত হলিউড সেই আগের মতোই নিয়ন্ত্রণ করছে। আমি বলছি না যে সিনেমাটা আমার পছন্দ হয় নাই, কিন্তু এই ছবি দিয়ে আমরা উল্টো পিছিয়ে গেলাম।”

এক্ষেত্রে তার টার্মিনেটর সিরিজের বিখ্যাত চরিত্র সারাহ কনোরকে শক্তিশালী নারী চরিত্রের একটি ইতিবাচক উদাহরণ হিসাবে মনে করেন তিনি, “সারাহ কনোর কোনো সৌন্দর্যের আইকন ছিল না। সে শক্তিশালী হলেও মানসিকভাবে ছিল জর্জরিত। আর মা হিসাবে তার অবস্থা একেবারেই শোচনীয়, কিন্তু তারপরও সে সম্পূর্ণ দৃঢ়তা দিয়ে দর্শকদের শ্রদ্ধা আদায় করে নিয়েছে।”

সাক্ষাৎকারটি প্রকাশিত হবার পর ওয়ান্ডার ওম্যানের পরিচালক প্যাটি জেনকিন্স তার টুইটার অ্যাকাউন্টে ক্যামেরনের দৃষ্টিভঙ্গির সমালোচনা করেন। এর আগে ২০০৩ সালে জেনকিন্স পরিচালিত ‘মনস্টার’ সিনেমাতে ‘নারীদের দৃঢ়তার অনন্য চরিত্রায়নের’ জন্য জেমস ক্যামেরন তার প্রশংসা করেছিলেন।

(বাঁ থেকে) ওয়ান্ডার ওম্যান সিনেমার সেটে অভিনেত্রী গ্যাল গ্যাদোত ও পরিচালক প্যাটি জেনকিন্স

টুইটার পোস্টটিতে জেনকিন্সের বক্তব্য ছিল এরকম–

“ওয়ান্ডার ওম্যান কী বা বিশ্বজুড়ে নারীদের কাছে এ সিনেমা কীসের প্রতিনিধিত্ব করে তা বুঝতে জেমস ক্যামেরনের যে অপারগতা—সেটা মোটেই বিস্ময়কর নয়। কারণ ক্যামেরন একজন গ্রেট চলচ্চিত্র নির্মাতা হলেও তিনি তো আর নারী নন। আমার সিনেমা ‘মন্সটার’ এর যে প্রশংসা তিনি করেছিলেন, তা আমাদের জন্য অনেক মূল্যবান ছিল। কিন্তু শক্তিশালী হবার জন্যে যদি নারীদেরকে সবসময় কঠিন, কঠোর ও মানসিকভাবে জর্জরিত হতে হয়—আর আমাদের যদি বহুমাত্রিক হবার স্বাধীনতা না থাকে কিংবা স্নেহময় ও আকর্ষণীয় বলেই একজন আইকনের প্রতি আমরা সম্মান প্রদর্শন করতে না পারি—তাহলে তো আমরা খুব বেশিদূর এগোতে পারি নাই, তাই না? কোনো পুরুষ প্রধান চরিত্র যা যা হতে পারে, আমি বিশ্বাস করি নারীরাও তা পারে এবং তাদের সে রকমই হওয়া উচিৎ। ক্ষমতাবান নারীর কোনো ঠিক বা ভুল প্রকারভেদ নাই। আর যে ব্যাপক পরিমাণ নারী দর্শক আমাদের এই সিনেমাকে সফল করেছেন, তারা নিশ্চিতভাবেই নিজেদের প্রগতির আইকন বেছে নিতে ও তার মূল্যায়ন করতে পারেন।”

ওয়ান্ডার ওম্যান দিয়ে ১৪ বছর পর চলচ্চিত্র পরিচালনায় ফিরে এসেছেন প্যাটি জেনকিন্স। তিনি মনে করেন, দর্শক ও সমালোচক মহলে ছবিটির সাফল্য ইন্ডাস্ট্রিতে অন্যান্য নারী পরিচালকদের অবস্থান তৈরিতে সহায়তা করবে।

ডিসি এক্সটেন্ডেড ইউনিভার্সের চতুর্থ খণ্ড ওয়ান্ডার ওম্যান ১৫ কোটির বাজেটে সারা বিশ্বে বক্স অফিসে আয় করেছে প্রায় ৮০ কোটি ডলার।

সূত্র. দ্য গার্ডিয়ান

About Author

সাম্প্রতিক ডেস্ক