page contents
সমকালীন বিশ্ব, শিল্প-সংস্কৃতি ও লাইফস্টাইল

কফি ন্যাপ

কাজের ক্লান্তি কিংবা ঘুম ঘুম ভাব দূর করতে খালি কফি খাওয়ার চাইতে কফি ন্যাপ অনেক বেশি কাজে দেয়।

কফি ন্যাপ মানে হল, কফি এবং তার সঙ্গে ন্যাপ নেওয়া বা অল্প সময়ের জন্য ঘুমানো।

কফি পানের পরে এর ক্যাফেইন ক্ষুদ্রান্ত্র দিয়ে রক্তের মাধ্যমে মস্তিষ্কে পৌঁছতে সময় নেয় প্রায় ২০ মিনিট। এই ২০ মিনিট অাপনি জেগে না থেকে যদি একটু ঘুমিয়ে নেন, তাহলে জেগে উঠে দেখবেন কোনো রকমের ক্লান্তি বোধ হচ্ছে না।

পরীক্ষাগুলিতে দেখা গেছে, কফি ন্যাপ নেওয়া প্রত্যেকেই দীর্ঘ সময় ক্লান্ত না হয়ে ধারাবাহিকভাবে কাজ করে যেতে পারছেন।

কফি ন্যাপ কীভাবে কাজ করে তা ক্লিয়ার হবে যদি বোঝেন ক্লান্তি জিনিসটা কী এবং তা কীভাবে কাজ করে।

ব্রেইনে এডেনোসিন নামের একধরনের মলিকিউল বা অণু থাকে যার কাজ মূলত এই ক্লান্তি তৈরি করা। এই অণু ব্রেইনের বিভিন্ন কাজের কারণে সারাদিন ধরে তৈরি হতে থাকা বাই প্রডাক্ট বা উপজাত। এডেনোসিন যা করে তা হল ব্রেইনের কোষের গায়ে যে রিসেপ্টর (একধরনের কোষ যা তাপ, আলো ও বাইরের পরিবেশের অন্যান্য জিনিসের প্রতি সাড়া দেয় এবং স্নায়ুর মাধ্যম শরীরে সিগনাল পাঠায়) থাকে, ওই রিসেপ্টরে গিয়ে আটকে যায়, নিউরনের কার্যক্ষমতা কমায় এবং অাপনাকে ক্লান্ত বানিয়ে ফেলে।

ক্যাফেইনের রাসায়নিক কাঠামো অনেকটাই এডেনোসিনের মত। ব্রেইনে প্রবেশের পর ক্যাফেইন ওই রিসেপ্টরগুলিতে থাকা এডেনোসিন অপসারণ করে নিজেরা ঢুকে পড়ে সেখানে এবং এডেনোসিনকে ঢুকতে বাধা দেয়। ফলে, অাপনার কোষগুলি স্বাভাবিকভাবে কাজ করতে পারে এবং অাপনিও ক্লান্তিহীন থাকেন।

কফি ন্যাপের উপর বড় কোনো গবেষণা না হলেও অনেকগুলি ছোট ছোট পরীক্ষামূলক গবেষণা হয়েছে। এই গবেষণাগুলিতে অংশগ্রহণকারীদের প্রত্যেকেই প্রথমে কফি ন্যাপ নিয়েছেন, তারপর একটা নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত কিছুক্ষণ পর পর তাদের ক্লান্তির লেভেল পরীক্ষা করা হয়েছে। পরীক্ষাগুলিতে দেখা গেছে, কফি ন্যাপ নেওয়া প্রত্যেকেই দীর্ঘ সময় ক্লান্ত না হয়ে ধারাবাহিকভাবে কাজ করে যেতে পারছেন। এছাড়া জাপানে করা একটা স্টাডিতে দেখা গেছে, কফি ন্যাপে অংশকারীরা মেমোরি টেস্টে বাকিদের থেকে বেশি মনোযোগী এবং ভালোভাবে কাজ করতে পারছেন।

কফি ন্যাপ নেওয়ার অাগে মনে করে ২০ মিনিটের টাইমার বা অ্যালার্ম সেট করে নিন।

তাড়া থাকলে অাপনি একটা এসপ্রেসো কিংবা অাইস কফি খান, খেয়ে ২০ মিনিটের অ্যালার্ম দিয়ে ঘুমানোর জন্য শুয়ে পড়েন। অাপনার ক্লান্তি দূর করার মিশন শুরু। কিন্তু তা না করে যদি বেশি সময় ধরে ঘুমিয়ে ফেলেন, তাহলে অাপনি ঘুমের গভীর স্তরে চলে যেতে পারেন, যেটাকে বিজ্ঞানীরা বলেন ‘স্লিপ ইনার্শিয়া’। স্লিপ ইনার্শিয়া থেকে জেগে ওঠার পর অাপনার ওই অাগের মতই বা তার থেকে বেশি ক্লান্ত লাগবে। ফলে, কফি ন্যাপ নেওয়ার অাগে মনে করে ২০ মিনিটের টাইমার বা অ্যালার্ম সেট করে নিন।

এর বাইরে দ্রুত ঘুমিয়ে পড়তে যাদের অসুবিধা হয়, তারাও কফি ন্যাপের সুবিধা নিতে পারেন। ঘুমাতে না পারলেও, কফি খেয়ে অন্তত কয়েক মিনিটের জন্য রেস্ট নিন। তাতে ক্লান্তির আনেকটাই দূর করতে পারবেন।

কমেন্ট করুন

মন্তব্য

About Author

সাম্প্রতিক ডেস্ক

Leave a Reply