কলাতে যথেষ্ট পরিমাণ ক্যালরি থাকে, ফলে ব্যায়ামের আগে খুবই উৎকৃষ্ট একটা খাবার কলা।

পাকা কলার খোসার হলুদ রঙ ধীরে ধীরে বাদামি হতে থাকে এবং সেখানে কালো কালো দাগ পড়ে। এক সময় কলার খোসার রঙ পুরোপুরি বাদামি অথবা কালো হয়ে যায়। আর আমরা কলা পচে গেছে মনে করে তা ফেলে দেই। কিন্তু একটা কলায় যত কালো দাগ থাকে, এটা যত পাকে, এটাতে তত বেশি ক্যান্সার প্রতিরোধী অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট থাকে। অবাক হচ্ছেন? কলার আরো কাজের ব্যাপার আছে! সেগুলি নিচে থাকছে।  

 

১.  ব্লাড প্রেশার

কলাতে আছে পটাশিয়াম এবং অল্প পরিমাণ সোডিয়াম। এর ফলে কলা ব্লাড প্রেশার কমাতে সাহায্য করে এবং স্ট্রোক ও হার্ট অ্যাটাক থেকে আপনাকে রক্ষা করে।

 

২. শক্তি

কলাতে যথেষ্ট পরিমাণ ক্যালরি থাকে, ফলে ব্যায়ামের আগে খুবই উৎকৃষ্ট একটা খাবার কলা।

কলাতে আছে অনেক ধরনের ভিটামিন, মিনারেল ও গ্লাইসেমিক ধরনের শর্করা। এগুলি আপনার শরীরে প্রয়োজনীয় শক্তি যোগায়। আর কলাতে থাকা পটাশিয়াম মাসল নষ্ট হওয়া থেকে রক্ষা করে।  

 

৩.  বুকজ্বলা

আপনার কি গ্যাস বা এসিডিটির কারণে বুক জ্বালাপোড়া করে? এন্টাসিড খেতে হয়? এই সমস্যায় কলা হচ্ছে প্রাকৃতিক সমাধান। আপনার যখন বুক জ্বালাপোড়া করে তখন কলা আপনাকে এই সমস্যা থেকে মুক্তি দিবে।

 

৪.  ডিপ্রেশন বা অবসাদ

কলাতে আছে ট্রাইপটোফ্যান নামের এক ধরনের উপাদান। ফলে, ডিপ্রেশন বা অবসাদে কলা ভাল কাজে দ্যে। আপনার মুড ভালো বা চাঙা করে যে উপাদান সেটার নাম সেরাটোনিন। কলা আপনার শরীরের সেরাটোনিনের মাত্রা বাড়ায়।

 

৫. কোষ্ঠকাঠিন্য

কলাতে প্রচুর ফাইবার বা আঁশ আছে। আপনার পরিপাকতন্ত্রের জন্য কলা খুবই উপকারী।  

 

৬.  স্নায়ু

খুব উদ্বিগ্ন বোধ করছেন বা চাপ বোধ করছেন? কলাতে আছে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন বি। কলা আপনার নার্ভ বা স্নায়ু শান্ত রাখে।

 

৭.  রক্তশূন্যতা

কলায় প্রচুর পরিমাণে আয়রন থাকার কারণে কলা রক্তশূন্যতার ক্ষেত্রে খুব উপকারী। কলা রক্তের লোহিত কণিকাকে সচল রাখে, হিমোগ্লোবিন উৎপাদন বাড়ায় এবং রক্ত সরবরাহ ঠিক রাখে।

 

এখনই পড়ুন: কলা সম্পর্কে যা যা আপনি জানেন না!

 

৮. আলসার

আপনার আলসার হলে আপনাকে অনেক সতর্ক হয়ে চলতে হয়। অনেক খাবারই আপনি খেতে পারেন না। কিন্তু কোনো রকম চিন্তা ছাড়াই আপনি কলা খেতে পারেন। কারণ, কলা নরম ও মসৃণ। ফলে এটি পাকস্থলীর দেয়ালে এক ধরনের আবরণ তৈরি করে এবং এসিড থেকে রক্ষা করে।

 

৯. তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ

খুব গরমের দিনে আপনি যদি কলা খান, তবে তা দেহের তাপমাত্রা কমিয়ে আপনাকে শীতল রাখবে। আপনার জ্বরের ক্ষেত্রেও কলা তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণের এই কাজটি করে।

কমেন্ট করুন

মন্তব্য