পশু অধিকার রক্ষাকারীরা বলছে, এই পুরো ব্যাপারটিই নৃশংস।

প্রযুক্তির প্রাচুর্য থাকা সত্ত্বেও ইউরোপের কৃষিবিজ্ঞানীরা যেন পিছনের দিকে ফিরলেন। গবাদি পশুর উপর নজর রাখার জন্য উদ্ভট এক উপায় অবলম্বন করতে শুরু করেছেন তারা। নজর রাখা বলতে, বিশেষ করে গবাদি পশুগুলি কী খাচ্ছে তার প্রতি লক্ষ্য রাখার জন্য এই পদ্ধতি।

এই প্রক্রিয়ার নাম ‘ক্যানুলা’। এতে গরুর পাকস্থলীতে সরাসরি একটি গর্ত কেটে জানালা তৈরি করা হয়। এটা অনেকটা জাহাজের জানালার মত। এটির মাধ্যমে গরুর মালিকেরা সরাসরি দেখতে পারেন গরুর ভিতরে কী প্রবেশ করছে।অপারেশন করে ক্যানুলা গরুর শরীরে বসিয়ে দেয়ার পর একটি নির্দিষ্ট সময় পর পর গরুগুলিকে পরীক্ষা করা হয়।

গরুর মালিকেরা একটি প্লাগ খুলে পরীক্ষা করে দেখেন গরুগুলি আসলে কী খাচ্ছে। ১৯২০ এর দশকে এবং তারও আগে ১৮৩০ সালের দিকে এই ব্যাপারটি চালু ছিল।


সুইজারল্যান্ডে গরুর হজম পরীক্ষা – ইউটিউব ভিডিও

বলা হচ্ছে, এই প্রক্রিয়ায় গরুগুলিকে অ্যানেস্থেশিয়া প্রয়োগ করা হয় এবং তারা কোনো ব্যথা পায় না। কিন্তু পশু অধিকার রক্ষাকারীরা বলছেন, এই পুরো ব্যাপারটিই নৃশংস।

অন্যদিকে গবেষকরা দাবি করছেন এই পদ্ধতিটি পরিবেশের জন্য ভালো হতে পারে। কারণ এই প্রক্রিয়ায় গরুগুলির শক্তি ব্যবহার করার দক্ষতা বাড়ে, ফলে তারা আগের থেকে তুলনামূলক কম মিথেন গ্যাস নির্গত করে।

কমেন্ট করুন

মন্তব্য