চুল পড়া কি বন্ধ করা সম্ভব?

শেয়ার করুন!

চুল পড়া বন্ধ করতে হলে সবার আগে আপনাকে জানতে হবে কী কারণে চুল পড়ছে। সবার ক্ষেত্রে যে একই কারণ তা নয়। ক্রমাগত চুলপড়া বন্ধ করার জন্য নিচের নির্দেশনাগুলি প্রাথমিকভাবে মেনে চলুন।

১. খাদ্যাভাস বদলে নিন

আপনি যে ধরনের খাবার খান তা চুল পড়া বা নতুন চুল গজানোর উপর প্রভাব ফেলে। কম চর্বি এবং বেশি ফাইবার যুক্ত খাবার গ্রহণ করুন। এতে নতুন চুল গজাবে এবং চুল পড়া বন্ধ হবে।

চুল পড়া বন্ধ করতে চাইলে কিছু কিছু খাবার না খাওয়া ভালো। যেমন খুব কম ক্যলরি যুক্ত খাবার, ডিমের সাদা অংশ ইত্যাদি।

২. প্রয়োজনীয় পানি পান করুন

চুল পড়া বন্ধ করতে চাইলে আপনার শরীরের জন্যে যতটুকু দরকার সে পরিমাণ পানি পান করুন। শরীরে পানি ঠিক থাকলে চুলের বৃদ্ধিও তাড়াতাড়ি ঘটে। পানি কম পান করলে কোষ্ঠকাঠিন্য, খুশকি, ত্বক ফেটে যাওয়া, চুল পড়া ইত্যাদি সমস্যা দেখা দেয়। এই কারণেই ডাক্তাররা প্রতিদিন কমপক্ষে আট গ্লাস পানি পান করার পরামর্শ দেন।

৩. চুলের সম্পূরক পুষ্টি বা হেয়ার সাপ্লিমেন্ট

কিছু হেয়ার সাপ্লিমেন্ট চুল পড়া বন্ধ করা ও প্রাকৃতিক ভাবে চুল গজানোর ক্ষেত্রে সুনাম অর্জন করেছে। বাজারে প্রচুর হেয়ার সাপ্লিমেন্ট পাওয়া গেলেও তার প্রায় বেশিরভাগই তেমন কার্যকর না।

৪. চুলের যত্ন নিন

ঘন ঘন তাপ দিয়ে চুল শুকাবেন না। তাপ চুলের প্রোটিন, স্নিগ্ধতা ও উজ্জ্বলতা নষ্ট করে। তাই প্রাকৃতিক ভাবে চুল শুকান। এতে আপনার চুল দৃঢ় ও মজবুত হবে। হেয়ার ড্রায়ার, হট ব্রাশ থেকে দূরে থাকুন।

যতটা সম্ভব চুল রঙ করা থেকে বিরত থাকুন। চুলে রাসায়নিক রঙ ব্যাবহারের ফলে চুল পেকে যাওয়ার আশঙ্কা দেখা দেয়।

৫. চুল অত শক্ত করে বাঁধবেন না

অনেক সময় চুল রাবার ব্যান্ড বা ক্লিপ দিয়ে খুব শক্ত করে বাঁধতে হয়। নিয়মিত এ কাজ করলে সেটাকে চুল পড়ার একটি কারণ হিসেবে ধরা যায়। শক্ত বেণির কারণে চুলে টান পড়ে, যে কারণে চুলের গোড়া নরম হয়ে যায়।

চুল মজবুত ভাবে বাঁধলে চুলের গোড়া নরম হয়ে যায়।

৬. পর্যাপ্ত ঘুম

চুল পড়ার আরেকটি কারণ হচ্ছে অপর্যাপ্ত ঘুম। ঘুম ঠিক করুন।

কমেন্ট করুন

মন্তব্য

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here