দক্ষিণ আফ্রিকান এক মডেলকে শারীরিকভাবে আঘাত করেছেন জিম্বাবুয়ের ফার্স্ট লেডি—মামলা চলছে

শেয়ার করুন!

জিম্বাবুয়ের প্রেসিডেন্ট রবার্ট মুগাবে ও তার স্ত্রী ফার্স্ট লেডি গ্রেস মুগাবে দক্ষিণ আফ্রিকায় এসেছিলেন আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চলের রাষ্ট্রপ্রধানদের একটি সভায় অংশ নিতে। জোহানেসবার্গের একটি আবাসিক হোটেলে ওঠেন তারা।

১৩ আগস্ট, ২০১৭ তারিখে স্যান্ডটনের ক্যাপিটাল টুয়েন্টি ওয়েস্ট হোটেলের একটি রুমে মডেল গ্যাব্রিয়েলা অ্যাঙ্গেলস তার দুই বান্ধবী ও দুইজন বন্ধুর সাথে সময় কাটাচ্ছিলেন। এর আগের দিন এক বন্ধুর মাধ্যমে মুগাবে দম্পতির ছোট ছেলে বেলারমাইন মুগাবে’র সাথে গ্যাব্রিয়েলার পরিচয় হলেও সেদিন তাদের সাথে বেলা ছিলেন না।

ছোট ছেলে বেলারমাইন ও বড় ছেলে রবার্ট জুনিয়রের সঙ্গে গ্রেস

কিন্তু নিজের ছেলের খোঁজে আকস্মিক তাদের রুমে প্রবেশ করেন মিসেস মুগাবে। তারপর উত্তেজিত হয়ে একটি ইলেক্ট্রিক তার দিয়ে গ্যাব্রিয়েলার বান্ধবীকে মারার চেষ্টা করলে মেয়েটি রুম থেকে পালিয়ে যায়। এরপর গ্যাব্রিয়েলাকে কোণঠাসা করে মাথায় ও কপালে উপর্যুপরি আঘাত করা শুরু করেন তিনি। তারের সম্মুখভাগে থাকা প্লাগের আঘাতে কপালের কিছু জায়গা গভীরভাবে কেটে যায় তার।

র‍্যাপোর্ট পত্রিকাকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে গ্যাব্রিয়েলা বলেন, “একবার দুইবার না। মনে হচ্ছিল যেন মহিলা আমাকে অনন্তকাল ধরে ওই তারের প্লাগ দিয়ে মারছিলেন।”

আঘাতপ্রাপ্ত মডেল গ্যাব্রিয়েলা অ্যাঙ্গেলস

পরে ব্যাপারটি নিয়ে আইনানুগ মামলা করা হলে গ্রেসের নামে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়। কিন্তু শেষ পর্যন্ত কূটনৈতিক সুরক্ষা পেয়ে যান তিনি। এরপর গত ২০ আগস্ট, ২০১৭ তারিখে দক্ষিণ আফ্রিকা ত্যাগ করেন জিম্বাবুয়ের এই প্রেসিডেন্ট পরিবার।

নাগরিক অধিকার সংস্থা আফ্রিফোরাম গ্যাব্রিয়েলাকে এই মামলায় সহযোগিতা করছে। তারা জানিয়েছে, গ্রেসকে কূটনৈতিক সুরক্ষা দেওয়া হলেও তারা এ সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল করবে। প্রয়োজন হলে ব্যক্তিগত মামলা করবে তারা।

প্রেসিডেন্ট মুগাবের সঙ্গে ফার্স্ট লেডি গ্রেস মুগাবে, ২০১৬

গ্যাব্রিয়েলার মা ডেবি অ্যাঙ্গেলস জানিয়েছেন, গ্রেস মুগাবের সহকারীরা তাদেরকে ক্ষতিপূরণের প্রস্তাব দিয়েছিল। কিন্তু তারা সেই প্রস্তাব ফিরিয়ে দেন।

দক্ষিণ আফ্রিকার প্রধান বিরোধী দল ডিপ্লোম্যাটিক অ্যালায়ান্স জানিয়েছে, গ্রেস মুগাবেকে দেশত্যাগ করার অনুমতি দেওয়ার ঘটনাটি তদন্ত করে দেখার জন্য সংসদে দাবি জানাবে তারা।

সূত্র. আফ্রিকা নিউজ. ২১.০৮.২০১৭

কমেন্ট করুন

মন্তব্য

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here