নিউ ইয়র্কের একটি রিয়েল এস্টেটের গ্রাফিতি নষ্ট করে দেওয়ার পর গ্রাফিতির শৈল্পিক অবস্থানের ব্যাপারে নিষ্পত্তিমূলক সিদ্ধান্ত নিয়েছে ব্রুকলিন আদালত। কুইন্সের ‘ফাইভপয়েন্টজ কমপ্লেক্স’ এর বাইরের দিকের দেওয়ালে আঁকা গ্রাফিতিকে ভিজ্যুয়াল আর্টিস্টস অধিকার আইনের আওতায় “স্বীকৃত গুণাবলী সম্পন্ন” পাবলিক আর্ট হিসাবে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

১৯৭০ এর দশকে প্রায় ১ মিলিয়ন ডলার দিয়ে ২ লাখ স্কয়ার ফুটের এই ফ্যাক্টরি বিল্ডিং কিনেছিলেন জেরি উলকফ। ‘৯০ এর দিকে গ্রাফিতি আর্টিস্টরা তার সেই খালি পড়ে থাকা ৫ তলা বিল্ডিংয়ে আঁকার অনুমতি চাইলে তিনি রাজি হন। ফাইভপয়েন্টজ এর গ্রাফিতি ধীরে ধীরে ইউএস ছাড়াও বিশ্বজুড়ে বেশ পরিচিতি পায়।

কিন্তু ২০১৩ সালের নভেম্বরে উলকফ সেই বিল্ডিং ভেঙে নতুন দোকান ও অ্যাপার্টমেন্ট বানানোর সিদ্ধান্ত নেন। বাকবিতণ্ডা আর গণ্ডগোল এড়ানোর জন্যে রাতের বেলা পেইন্টার ভাড়া করে গ্রাফিতিগুলি সাদা রঙ দিয়ে মুছে দেন তিনি। তার বক্তব্যে তিনি নিজেও ছবিগুলির ব্যাপারে যথেষ্ট আবেগী ছিলেন বলে জানান।

কিন্তু গণ্ডগোল এড়ালেও তার এই সিদ্ধান্ত প্রচুর সমালোচিত হয়। গ্রাফিতিগুলি “রাতারাতি খুন” করে ফেলার এ ঘটনাকে ফাইভপয়েন্টজ কমিউনিটি সহজে মেনে নেয় নি। ঘটনার কয়েক সপ্তাহের মধ্যে ২০ জন গ্রাফিতি আর্টিস্ট মামলা করেন।

ব্রুকলিনের ইউএস ডিস্ট্রিক্ট কোর্ট ২০১৭ সালের মার্চে তাদের মামলাকে আদালতে বিচারের যোগ্য ঘোষণা করে। আর্টিস্টদের পক্ষের আইনজীবী জানান, আগে থেকে ঠিকমত নোটিশ দিয়ে ছবিগুলি মুছে ফেলা হলে ফটোগ্রাফ বা ভিডিও’র মাধ্যমে তাদের গ্রাফিতি সংরক্ষণ করে রাখতে পারতেন তারা।

২০১৭ সালের নভেম্বরে একটি সিভিল জুরি বোর্ডের রায়ে ঘোষণা করা হয়, ডেভেলপার তাদের গ্রাফিতি বিনা নোটিশে নষ্ট করে ভিজ্যুয়াল আর্টিস্টস অধিকার আইন লঙ্ঘন করেছেন। এরপর ১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ তারিখে আদালত সেই সিদ্ধান্ত বহাল রেখে আর্টিস্টদেরকে ৬.৭ মিলিয়ন ডলার ক্ষতিপূরণ দেওয়ার রায় দেয়।

সূত্র. এনপিআর ডট অর্গ

কমেন্ট করুন

মন্তব্য