পেন্টাগন পেপারস কেলেঙ্কারি নিয়ে স্পিলবার্গের ‘দ্যা পোস্ট’—থাকছেন টম হ্যাংক্স ও মেরিল স্ট্রিপ

শেয়ার করুন!

পেন্টাগন পেপারস কেলেঙ্কারি নিয়ে সিনেমা বানাচ্ছেন অস্কারজয়ী পরিচালক স্টিভেন স্পিলবার্গ। আর তাতে অভিনয় করছেন অস্কারজয়ী দুই তারকা মেরিল স্ট্রিপ ও টম হ্যাংক্স। ছবির চিত্রনাট্য লিখেছেন লিজ হানা। প্রযোজক এমি প্যাসকেল এর প্রযোজনা সংস্থা প্যাসকাল পিকচার্স চিত্রনাট্যটি কিনে নেয়ার পর এখন অন্যান্য চুক্তি সম্পাদন করছে। ছবির সম্ভাব্য নাম “দ্যা পোস্ট”। ছবির পটভূমি ১৯৭১ সালের আলোচিত পেন্টাগন পেপারস কেলেঙ্কারি ও তাতে ওয়াশিংটন পোস্ট এর সাহসী ভূমিকা।

ওয়াশিংটন পোস্ট এর প্রকাশক কে গ্রাহাম ও সম্পাদক বেন ব্রেডলি সে সময় গণমাধ্যমের মতপ্রকাশের স্বাধীনতার ব্যাপারে আমেরিকান সরকারকে চ্যালেঞ্জ করে চাপের মুখে রেখেছিলেন। ‘দ্যা পোস্ট’ এ ওয়াশিংটন পোস্ট এর সম্পাদক ব্রেডলি চরিত্রে থাকবেন হ্যাংক্স। স্ট্রিপ থাকবেন প্রকাশক গ্রাহাম চরিত্রে।

সিনেমাটির অর্থায়ন করেছে ফক্স ও এম্বলিন এন্টারটেইনমেন্ট। দেশীয় পরিসরে পরিবেশনার দায়িত্ব ফক্সের আর আন্তর্জাতিক দায়িত্ব এম্বলিনের। এম্বলিনকে এতে সহায়তা করবে ইউনিভার্সাল, ইওয়ান, রিলায়েন্স এবং অন্যান্যরা। ড্রিমওয়ার্কস এর চেয়ারম্যান/সিইও স্ট্যাসি স্নাইডার, স্পিলবার্গের দীর্ঘদিনের সহকর্মী। ফক্স এর সাথে এই চুক্তির ফলে তার সাথে আবারও কাজ করার সুযোগ হলো স্পিলবার্গের।

‘ওয়াশিংটন পোস্ট ‘-এর সম্পাদক বেন ব্রেডলি।

অন্যদিকে, এ নিয়ে পঞ্চমবার একসাথে কাজ করবেন স্পিলবার্গ ও হ্যাংক্স। এর আগে তারা ‘সেইভিং প্রাইভেট রায়ান’, ‘ক্যাচ মি ইফ ইউ ক্যান’, ‘দ্যা টার্মিনাল’ এবং ‘ব্রিজ ওফ স্পাইস’-এ একসাথে কাজ করেছেন। স্ট্রিপ এর সাথেও আগে কাজ করেছেন স্পিলবার্গ। ‘এ.আই.’ ছবিতে ব্লু ফেইরি’র কণ্ঠ দিয়েছিলেন স্ট্রিপ। এছাড়াও নেটফ্লিক্সের জন্য বানানো ডকুমেন্টারি ‘ফাইভ কেইম ব্যাক’ এরও গল্পকথক স্ট্রিপ। সিনেমায় দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের প্রভাব বিষয়ক এই ডকুমেন্টারির একটি সাক্ষাৎকারে আছেন স্পিলবার্গ নিজেই। ডকুমেন্টারিটির এক্সিকিউটিভ প্রডিউসারও স্পিলবার্গ।

গুরুত্বপূর্ণ গোপন ইমেইল ফাঁস হওয়া কি মত প্রকাশের স্বাধীনতা নাকি প্রাইভেসির হরণ—এমন বিতর্ক বর্তমানে আলোচিত একটি বিষয়। কিন্তু তার অনেক আগেই পেন্টাগন পেপারস কেলেঙ্কারি আসলে একই রকম ‘হুইসেল ব্লোয়ার’ এর কাজটি করে।

পেন্টাগন পেপারস কেলেঙ্কারিতে ফাঁস হয় ভিয়েতনাম যুদ্ধে আমেরিকার ভূমিকা নিয়ে গোপন কিছু তথ্য। ভিয়েতনাম যুদ্ধে সরাসরি অংশগ্রহণ করার জন্য আমেরিকান সরকার দক্ষিণ ভিয়েতনামে প্রায় ৫ লক্ষ সেনা মোতায়েন করে। এই তথ্য ছিল আমেরিকান জনগণের কাছে সম্পূর্ণ গোপন।

মিলিটারি গবেষক ডেনিয়েল এলসবার্গ যখন এই তথ্যগুলি নিয়ে গবেষণা করেন, তার মনে হয় এগুলি প্রকাশ করা জরুরি। ফলে তিনি এই তথ্যগুলি প্রতিবেদন আকারে ‘নিউইয়র্ক টাইমস’-এ প্রকাশ করে দেন। ভিয়েতনাম যুদ্ধ নিয়ে জনগণের কাছে যে মিথ্যেগুলি প্রচার করে আসা হচ্ছিল, এই রিপোর্ট সেই সত্যগুলি উন্মোচন করে দেয়।

‘নিউইয়র্ক টাইমস’ প্রতিবেদনগুলি প্রকাশ করার পরপরই আমেরিকান প্রশাসনের দিক থেকে প্রতিক্রিয়া আসা শুরু করে। মাত্র ৩ টি প্রতিবেদন প্রকাশ হওয়ার পরই তারা তা থামিয়ে দেয়। কিন্তু আমেরিকান প্রশাসনের বাধা থাকার পরও ‘ওয়াশিংটন পোস্ট’ ৪৭ খণ্ডের এই প্রতিবেদন ধারাবাহিকভাবে প্রকাশ করা শুরু করে।

‘দ্যা পোস্ট’ সিনেমাটির মূল কাহিনি ‘ওয়াশিংটন পোস্ট’-এর সম্পাদক ও প্রকাশকের এই সাহসী ভূমিকা নিয়েই।

প্যাসকেল এর সাথে ‘দ্যা পোস্ট’ ছবির প্রযোজক হিসেবে থাকবেন স্পিলবার্গ এবং ক্রিস্টি ম্যাকোস্কো ক্রিগার (ব্রিজ ওফ স্পাইস)। এক্সিকিউটিভ প্রডিউসার হিসেবে থাকবেন রাচেল ও’কনর, এডাম সমনার ও স্টার থ্রোয়ার এন্টারটেইনমেন্ট এর টিম এবং ট্রেভর হোয়াইট। স্পিলবার্গের ব্যস্ত শিডিউলের সাথে খাপ খাইয়ে দ্রুতই তারা এই ছবির কাজ শুরু করবেন। এই মুহূর্তে স্পিলবার্গ ‘দ্যা কিডন্যাপিং অফ এডগার্ডো মোরটারা’ ছবির কাস্টিং নিয়ে ব্যস্ত আছেন। এই ছবিতে কাজ করছেন মার্ক রাইলেন্স এবং ওস্কার আইজাক। এছাড়াও স্পিলবার্গ ‘রেডি প্লেয়ার ওয়ান’ ছবির পোস্ট-প্রডাকশন নিয়ে ব্যস্ত আছেন।

সিনেমাটির সম্ভাব্য মুক্তির তারিখ এখনও জানানো হয় নি।

কমেন্ট করুন

মন্তব্য

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here