লেবার ডে (২০১৩)

শেয়ার করুন!


লেবার ডে সিনেমার কাহিনী একজন ‘সিঙ্গেল’ মায়ের। সিনেমার পটভূমি ১৯৮৭ সাল।

ফ্র্যাঙ্ককে গাড়িতে আশ্রয় দেয় আডিলে এবং তার ছেলে হেনরি। তারা জানতে পারে যাকে সাহায্য করছে সে একজন পলাতক আসামী। পুলিশ সারা শহর খুঁজে বেড়াচ্ছে তার জন্য। আডিলে এবং হেনরি ধীরে ধীরে লোকটির সত্যিকার অতীত সম্পর্কে জানতে পারে। লোকটির নাম ফ্র্যাঙ্ক চেম্বারস। ফ্র্যাঙ্ক ভিয়েতনামে যুদ্ধ করেছে। যুদ্ধ থেকে ফিরে এসে সে তার অন্তঃসত্ত্বা গার্লফ্রেন্ডকে বিয়ে করে। সন্তান জন্ম হওয়ার পরে একসময় ফ্র্যাঙ্ক জানতে পারে সন্তানটির বাবা ফ্র্যাঙ্ক নয়। ঝগড়ার এক পর্যায়ে ফ্র্যাঙ্ক তার স্ত্রীকে ধাক্কা দিলে দুর্ঘটনাবশত সে সিড়ি থেকে পড়ে মারা যায়। ফ্র্যাঙ্ককে জেলে যেতে হয়।


লেবার ডে তে দেখা যায় আডিলে ফ্র্যাঙ্কের প্রেমে পড়ে এবং হেনরিকে সাথে নিয়ে কানাডা চলে যেতে চায়। কিন্তু এই সময়ে হেনরির সাথে তার চেয়ে বয়সে বড় একটি মেয়ের বন্ধুত্ব হয়। মেয়েটি তাকে বোঝায় আডিলে এবং ফ্র্যাঙ্ক তাকে ত্যাগ করতে চাইছে। অসাবধানে হেনরি মেয়েটিকে ফ্র্যাঙ্কের অতীত ইতিহাস বলে দেয়। মেয়েটি পুরষ্কারের আশায় পুলিশকে বলে দেয় ফ্র্যাঙ্কের খোঁজ। অনেক বছর পরে হেনরি যখন ব্যাঙ্কার, ফ্র্যাঙ্ক জেল থেকে তাকে মেসেজ পাঠায়। হেনরি তখনো সিঙ্গেল থাকা আডিলেকে ফ্র্যাঙ্কের সাথে দেখা করাতে নিয়ে যায়।


লেবার ডে ছবির অফিসিয়াল ট্রেইলার

লেবার ডে পরিচালনা করেছেন জেসন রেইটম্যান। জয়েস মায়নার্ডের উপন্যাস অবলম্বনে চিত্রনাট্য করেছেন জেসন রেইটম্যান নিজেই। সিনেমায় আডিলে চরিত্রে অভিনয় করেছেন কেট উইন্সলেট সহ আরো অনেকে।
সিনেমাটি ১১১ মিনিটের।

হেনরি মেয়েটিকে ফ্র্যাঙ্কের অতীত ইতিহাস বলে দেয়। মেয়েটি পুরষ্কারের আশায় পুলিশকে বলে দেয় ফ্র্যাঙ্কের খোঁজ। 

২০০৯ সালের সেপ্টেম্বরে ঘোষণা দেওয়া হয়েছিল যে রেইটম্যান জয়েস মায়নার্ডের উপন্যাসের উপর চিত্রনাট্য নিয়ে কাজ করছেন। গল্প নিয়ে রেইটম্যান বলেন, “আমি বইটা পড়ে সিনেমাটা আমার মাথার মধ্যে দেখতে পেয়েছিলাম। গল্পটা পড়ে আমি নিজে চ্যালেঞ্জড হয়েছিলাম। আমি অন্য যা কিছু পড়েছি সবগুলি থেকে এটা আলাদা ছিল।


রেইটম্যান ২০০৯ সালে আপ ইন দ্য এয়ার এর পরপরই এই সিনেমা টি বানাতে চেয়েছিলেন। কিন্তু কেট উইন্সলেটের শিডিউল সমস্যার কারণে তিনি তখন এটা শুরু করতে পারেননি। তাই সে সময় তিনি ইয়াং এডাল্ট সিনেমার কাজ শুরু করেছিলেন।


২০১২ সালের জুন মাসের ১৩ তারিখ ম্যাসাচুয়েটসে লেবার ডের শ্যুটিং শুরু হয়। ২০১৩ টরোন্টো ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে লেবার ডের প্রথম প্রিমিয়ার হয়।

লেবার ডে মুক্তি পেয়েছে ২০১৪ সালের ৩১ জানুয়ারি।

 

কমেন্ট করুন

মন্তব্য

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here