২০১৮ সালের মাঝমাঝিতে এর শুটিং শুরু হবে, আর ২০১৯ সালে ছবিটি মুক্তি দেওয়ার কথা রয়েছে।

বিখ্যাত সায়েন্স ফিকশন ফ্র্যাঞ্চাইজি ‘স্টার ট্রেক’ এর নতুন ফিল্ম সিরিজ শুরু হয় ২০০৯ সালে। এরপর এর দুটি সিক্যুয়েল বের হয় যথাক্রমে ২০১৩ ও ২০১৬ তে। প্রথম দুইটি ছবি পরিচালনা করেছিলেন জে জে অ্যাব্রামস, তিন নম্বর ছবির পরিচালক ছিলেন জাস্টিন লিন। কিন্তু ৪ ডিসেম্বর, ২০১৭ তারিখে ডেডলাইন এর প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, পরিচালক কুয়েনটিন ট্যারেনটিনো ‘স্টার ট্রেক’ এর নতুন সিনেমা পরিচালনা করার জন্য প্যারামাউন্ট পিকচার্স ও পরিচালক অ্যাব্রামসের সাথে কথা বলছেন।

এই সিনেমার জন্য একটি সম্ভাব্য গল্পের আইডিয়া নিয়ে তাদের সাথে মিটিং করেন তিনি। এরপর ৭ ডিসেম্বর জানানো হয়, সিনেমাটির চিত্রনাট্য লেখার জন্য চারজন চিত্রনাট্যকারের একটি দলের সাথে বেশ কয়েক ঘণ্টা আলোচনা করেন ট্যারেনটিনো। এ দলের সদস্যরা হলেন মার্ক এল স্মিথ, লিন্ডসি বিয়ার, ড্রু পিয়ার্স ও মেগান অ্যামর‍্যাম।

এর আগে ট্যারেনটিনো তার মৌলিক গল্প নিয়ে ভিন্ন আরেকটি সিনেমা বানানোর জন্য সনি পিকচার্সের সাথে চুক্তিবদ্ধ হন। তিনি এখনও পর্যন্ত তার সব সিনেমা তৈরি করেছেন প্রযোজক ও পরিবেশক হার্ভি ওয়াইন্সটিনের সাথে। কিন্তু ২০১৭ সালের অক্টোবর মাসে হার্ভির নামে ৫০ জনেরও বেশি মহিলা ধর্ষণ ও যৌন হয়রানির অভিযোগ করলে তাকে নিজের প্রযোজনা সংস্থা ‘ওয়াইন্সটিন কোম্পানি’ থেকে বহিস্কার করা হয়। সেই সাথে সোশ্যাল মিডিয়ায় হলিউডের যৌন হয়রানি সংশ্লিষ্ট ঘটনা প্রকাশের উদ্দেশ্যে চালু হয় ক্যাম্পেইন, যার ফলে অভিনেতা কেভিন স্পেসি, কমেডিয়ান লুইস সি কে এবং পরিচালক ব্রেট র‍্যাটনার একইভাবে অভিযুক্ত হন। মিডিয়ায় এই ঘটনাকে ‘ওয়াইন্সটিন ইফেক্ট’ নামে উল্লেখ করা হচ্ছে।

স্টার ট্রেক সিরিজের সর্বশেষ ছবি ‘স্টার ট্রেক: বিয়ন্ড’ (২০১৬) এর পোস্টার; ট্যারেনটিনো পরিচালিত নতুন সিনেমাটি এর সিক্যুয়েল হবে নাকি সম্পূর্ণ রিবুট হবে তা এখনো জানা যায় নি।

কাজেই ট্যারেনটিনো তার নতুন সিনেমার পরিবেশকের খোঁজে প্রথম বারের মতো অন্যান্য স্টুডিওর কাছে ধর্না দেন। তার সিনেমার ডিস্ট্রিবিউটরের দায়িত্ব পাওয়ার জন্য হলিউডের প্রথম সারির স্টুডিওগুলির মাঝে নিলাম ডাকা হয়। কেবল ডিজনি এ নিলামে অংশ নেয় নাই, কারণ তারা ‘আর-রেটেড’ সিনেমা মুক্তি দেয় না। নিলাম শেষে ট্যারেনটিনোর নতুন সিনেমার ডিস্ট্রিবিউটর হিসাবে নিযুক্ত হয় সনি পিকচার্স।

ষাট ও সত্তর দশকের কুখ্যাত খুনী চার্লস ম্যানসনকে নিয়ে বানানো হয়েছে ট্যারেনটিনোর নতুন সিনেমার গল্প। তবে এর কেন্দ্রীয় চরিত্রে ম্যানসন থাকবেন না; এখনো পর্যন্ত পাওয়া তথ্য মতে, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের কাহিনী নিয়ে ট্যারেনটিনোর ২০০৯ সালের ছবি ‘ইনগ্লোরিয়াস বাস্টার্ডস’ এর অ্যাডলফ হিটলারের মতো হবে সেই চরিত্রের পরিধি। কাস্টিংয়ের জন্য অস্কারজয়ী অভিনেত্রী জেনিফার লরেন্সের সাথে ট্যারান্টিনোর কথাবার্তা হয়েছিল, এছাড়া দুই পুরুষ কেন্দ্রীয় চরিত্রে লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিও, ব্র্যাড পিট কিংবা টম ক্রুজের কথা উল্লেখ করা হয়েছে। পরিচালক রোমান পোলানস্কির প্রাক্তন স্ত্রী অভিনেত্রী শ্যারন টেইটের চরিত্রে (যাকে চার্লস ম্যানসনের দল হত্যা করেছিল) অস্ট্রেলিয়ান মারগো রবি’র অভিনয় করার কথা রয়েছে। তবে এখনও কোনো কিছু নিশ্চিত করা হয় নি।

আরো পড়ুন: ‘ম্যানসন ফ্যামিলি’র অভিনেত্রী শ্যারন টেইট হত্যা নিয়ে ছবি বানাচ্ছেন কুয়েনটিন টারানটিনো

২০১৮ সালের মাঝমাঝিতে এর শুটিং শুরু হবে, আর ২০১৯ সালে ছবিটি মুক্তি দেওয়ার কথা রয়েছে। এই সিনেমার শুটিং চলার ফাঁকেই লেখা হবে স্টার ট্রেক এর নতুন সিনেমার চিত্রনাট্য। আলোচনার পর ট্যারেনটিনো তার পছন্দের লেখককে নিয়োগ দিবেন। এখনও পর্যন্ত এ দায়িত্ব পাওয়ার জন্য মার্ক এল স্মিথের সম্ভাবনাই বেশি বলে মনে করা হচ্ছে। স্মিথ এর আগে অস্কারজয়ী সিনেমা ‘দ্য রেভেন্যান্ট’ এর চিত্রনাট্য লিখেছিলেন। স্টার ট্রেক এর নতুন এই সিনেমার গল্পও ‘আর-রেটিং’ লক্ষ করে লেখা হবে, কারণ ট্যারেনটিনোর ছবিতে ভায়োলেন্স ও ‘অমার্জিত’ সংলাপ অপরিহার্য। তাই প্রযোজকরাও দ্বিমত জানান নি। সবকিছু নিশ্চিত হলে ফ্র্যাঞ্চাইজি ভিত্তিক হলিউড ব্লকবাস্টার সিনেমার ইতিহাসে এই ছবিটি বিশেষ অবস্থান তৈরি করতে পারে।

কমেন্ট করুন

মন্তব্য