page contents
সমকালীন বিশ্ব, শিল্প-সংস্কৃতি ও লাইফস্টাইল

ঘরপলায়নসমূহ Archive

জার্নি বাই ছাদ অ্যাট শবে বরাতের রাত অ্যান্ড মিটিং উইথ অ্যান ওল্ড আংকেল

এগুলা নিশ্চয়ই গায়েবি কোনও ব্যাপার। যেন আশ্চর্য জায়নামাজে চইড়া জ্বিনের গ্রাম কি ইবলিশের মফস্বল পার হইতেছি আমি।

মিতুখালাকে সারাজীবন ধরে মনে আছে

আর কী। হুদাই। স্বল্পতম সময়ের মধ্যে পৃথিবীর বুকে একটা বিশিষ্ট ছ্যাঁকা—যা না খাইলেই পারতাম—খাইয়া বসলাম।

সেই কবেকার লক্ষ্মীয়ারার রাদিয়ার দাদীবাড়ি

আমি তখন জিএ একাডেমি স্কুলে—ক্লাস সিক্সে পড়ি। কার থেকে যেন জানতে পারি, সকাল নয়টার দিকে সে ছাই কালারের একটা বোরকা পইরা মাদ্রাসায় যায়।

ঘোড়াশাল থেকে ভৈরব—একটি দুঃস্বপ্ন অর্জনের ঘটনা

একটাও কোনো আন্তঃনগর ট্রেন ঘোড়াশাল স্টেশনে থামে না জন্য ছোটবেলা থেকেই আমার রেলমন্ত্রী হওয়ার শখ, যদিও তখন অবধি সেই মন্ত্রণালয় প্রতিষ্ঠিত হয় নাই।

চৌমুহনীর পূর্ণিমায় চাঁদের বুড়ির সিক্রেট

তারপর পুলিশের এক ছেলের জন্য আমি ঘর পালাইলাম।... পারিবারিক নির্যাতনে সে ছিল অতীষ্ঠ। বাপ তো পুলিশ বটেই, মাও সঙ্গদোষে প্রায়পুলিশ...

আখাউড়া জংশনের আবিষ্কারক দুপুর

পরেরদিন ইংরেজি ম্যাডাম আইসা আমার সামনের টেবিলে বসলো। বললো, তুমি নাকি আমাকে স্বপ্ন দেখেছো?

খারাপ পরীর সঙ্গে প্রেমের দিনগুলি

কিছুদিনের জন্য ঘরপালানি বন্ধ হয় আমার, কিন্তু তার বদলে এই এক জিনিসের আবির্ভাব ঘটে—পাড়ার বাইরে বাইরে, তুলনামূলক নির্জন জায়গায় গিয়া ঘণ্টার পর ঘণ্টা একলা বইসা থাকা।

সন্ধ্যার পর পর প্রিয়াঙ্কাদের বাসায়

ওদের বাসায় রেলওয়ের নিজস্ব শিকের ছোটমত জানালাগুলির দিকে ইতিউতি তাকাইতেছি এই আশায়—যদি প্রিয়াঙ্কারে একটু দেখা যায়।

লাকসাম রেলকলোনিতে টিটিই’র বাসায় একরাত

ছোটবেলায় ঘর পালানোয় অভ্যস্ত কিছু পোলাপান থাকে, আমি ছিলাম তাদের একজন।